ভাতারক কাইঁও পটানোর চায়? যা করবেন তোমরা



জীবন যাপন ডেস্ক

মাইয়া-ভাতার হইলো বিশ্বাসের সম্পক্ক। এই সম্পক্কে বাইরার কাইঁও ঢুকলে দ্যাখ্যা যায় ফাটল। এদং হইলে তোমরা মন বেজার করবেন, উস্সি উস্সি যাইবেন এইটায় ঠিক। ম্যালা বেটিছাওয়া আছে বিয়া করা চেংরাক দেখলে মিছাও মিছাও গাত যায়া ঘোষ্ঠা খায়। এগলা থাকি ভাতারক বাঁচবার চান যদি তাহলে মুই যা কং তা শোন। 

চেংরিক সই বানান
তোমার ভাতারক যাই বশ আনার চায় তার সাথত কাজিয়া না করি ভাও কর। ওদং হলে সই বানান। যখন দ্যাখবে তোমরা সেই ভাল তখন তাই তোমাক আর ঠকবার চাবান্নয়। তোমার ভাতারের সাথত কাথা কওয়ার গেইলে ভুল বুঝবার পাইবে। আর কাথা নাও কবার চায়।

ভাতারের সাথত যোগাযোগ বাড়ান:
অন্য চেংরির সাথে যোগাযোগের আও তোমার ভাতারক কইলে আরো উল্টা হবার পায়। তোমার ভাতারক ঠান্ডা মাথায় আগত শেয়ার কর। খোলাখুলি আও কর মুসকিল আসান হবার পায়।

নিজে সম্পক্কটাত সমায় দেন
এলা তোমার ভাতারের অন্নরকম দ্যাখলেন কি? এটাও হবার পায় তোমার ভাতার ওই চেংরির সাথত বেখেয়ালে যোগাযোগ করছে। এই জন্ন নিজে ভাতারের সাথত সম্পক্ক মজবুত কর। আর দূরত না থাকি একজন আরএবজনক সমায় দেও। বেড়বার যাও। সম্পক্কটাক মাথাত রাখ।

বিশ্শাস কর:
এ সমায়ে ভাতারের উপরা থাকি বিশশাস  ওপর থেকে বিশশাস উঠি যায়। কিন্তু মাথাত রাখবেন এইটা করা যাবারে নয়। এমনও হবার পায় তোমার ভাতারের কোন দোষ নাই। তাই চিন্তা করি ভাতারক কৌশলে ঠিক করেন। 

হাসির ছলে মানি নেওয়া: 
সন্দেহ করা আর রাগ না হয়য়া ইযার্কি মনত করি বিষয়টা নেন। একটা বিষয় ভাব যে মানষ্যিটা তোমার ভাতার তাক মানুষ পটাপার চায়। কষ্ট হইলে উড়ি দেও। দ্যাখপেন তোমার ভাতার ঠিক হইবে। 

সূত্র: দ্যা টাইমস অব ইন্ডিয়া

Post a Comment

Previous Post Next Post