নাকদড়ি



বিপুল রায়
কি কইম আর দুখের কথা
   দুই‌ ঠ্যাঙোতে ছান্দন
ভালের নাগি বিয়াও করি–
    বিরায় এলা কান্দন!

সোনার সংসার ভাঙির চায়
    নওদারী মোর আসি
হাত ফুলফুল পাও ফুলফুল;
   শাশুড়িক কয় দাসী!

মাওয়ের সাথে বনে না রে,
   বাপোকও থয় ওষা
এইলা কথা কং যুদি মুই–
 প্যাট ফুলি হয় গোঁসা!

একেনায় সার বইনি মোর
   তাক না করে আও
এইমন চলন দেখি– বাহে
   কার না জ্বলে গাও?

ভাসুড়-শশুড় দাম না পায়,
  পাড়া-পড়শীক ছাড়ো
মুই যুদি হং বারো– বাহে
   উয়ায় সেলা ত্যারো!

ভুলটা যুদি ধরোং খালি
     চন্ডীর রূপ ধরে–
চোখু পাকায় বড়ো বড়ো,
   পায় যুদি– বধ করে!

মরণ দশা হইল রে বাপো
   দো-পাইতাত পড়ি...
উয়ার আব্বেশ মিটি মিটি
  উঠে মোর ধরফরি!

সোনার গয়না গড়ে দিলুং
    জমি বন্দক দিয়া
তাও বোলে মুই চিক্টা-ধনি
   দ্যাং না কিছু নিয়া!

মাসে মাসে পকেট মোর
      ইচ্ছা-মতন লুটে–
সুজোগ বুঝি ফুরুৎ করি
    বাপের বাড়ি ছুটে!

মিছাং মিছাং কত নালিশ
    বাপের বাড়িত করে
শাশুড়ি-মাও ওইলা নিয়া
  কোট-কাচারিত লড়ে!

কি হবে আর পস্তে আজি,
    দুষিম এলা কাক?
ঘটক শালায় ঠ্যাকে-ঠুকে
   ফরেয়া দিসে নাক!

নাকদড়িখান পিন্দি মোর
   জীবনটা হইল মাটি
নওদারীটার কান্ড দেখি–
   বুকখান যায় ফাটি!

তারিখ: ১৭/০১/২০২২

Post a Comment

Previous Post Next Post